বিজয় কীবোর্ড দিয়ে কম্পিউটারে বাংলা স্বরবর্ণ, ব্যঞ্জনবর্ণ, বিরাম চিহ্ন ও যুক্তাক্ষর লেখার নিয়ম

বিজয় কীবোর্ড দিয়ে কম্পিউটারে বাংলা স্বরবর্ণ, ব্যঞ্জনবর্ণ, বিরাম চিহ্ন ও যুক্তাক্ষর লেখার নিয়ম

কম্পিউটার দিয়ে কাজ করতে বাংলা লেখালেখি করা অতি জরুরী একটা বিষয়। আর যারা বাংলায় লেখালেখি করেন তারা অবশ্যই বাংলা টাইপ করতে কিছু কিছু সমস্যায় পরেন। এর মধ্যে সবচেয়ে জটিল সমস্যাটা হলো স্বরবর্ণ, ব্যঞ্জনবর্ণ, বিরাম চিহ্ন ও যুক্তাক্ষর লেখা। তো চলুন জেনেই এই স্বরবর্ণ, ব্যঞ্জনবর্ণ, বিরাম চিহ্ন ও যুক্তাক্ষর আপনি আপনার কম্পিউটার কীবোর্ড দিয়ে কিভাবে টাইপ করবেন।
বিজয় কীবোর্ড যেভাবে কম্পিউটারে সেট করবেন
বিজয় কীবোর্ড ইন্সটল দেয়ার পর এটিকে ব্যবহারের জন্য সেট করা প্রয়োজন। বিজয় কীবোর্ড এর মাধ্যমে লেখার জন্য আপনাকে দুটি কাজ করতে হবে। প্রথমে বাংলা ফন্ট সেট করতে হবে এবং বাংলা লেখার সফটওয়্যার চালু করতে হবে । এ দুটি কাজের মধ্যে কোন একটি কাজ না করলে বাংলা লেখা যাবে না।
বাংলা লেখার সফটওয়্যার চালু করার জন্য কম্পিউটারের কীবোর্ডে Ctrl+Alt চাপ দিয়ে ধরে B চাপ দিতে হবে, এখন আপনার কীবোর্ডটি বাংলা লেখার জন্য সেট হয়ে গেছে। সাধারনত SutonnyMJ ফন্টটি বিজয়ে লেখার জন্য বেশি ব্যবহার হয় । যদি আপনার ফন্ট সেটআপটি ঠিক থাকে তাহরে বাংলা বর্ণমালার প্রথম বর্ণটি আসবে, অর্থাৎ অ আসবে ।
যদি বাংলা থেকে পুনরায় ইংরেজী ফন্টে আসতে চান, তাহলে আবার Ctrl+Alt+B প্রেস করুন এবং ফন্টকে পরিবর্তন করতে যেকোন একটি ইংরেজী ফন্ট যেমন (Times New Roman/Calibri) সেট করুন । তাহলে আপনি পুনরায় ইংরেজী টাইপ করতে পারবেন।
বিজয় কীবোর্ড লেআউটে বাংলা লেখার কিছু নির্দেশনা
বিজয় কীবোর্ডে লক্ষ্য করলে দেখবেন প্রতিটি কী তে দুটি করে বাংলা অক্ষর রয়েছে। আপনি যখন বাংলা টাইপ করবেন তখন নিচের অক্ষর গুলো লিখতে চাইলে সাধারণ প্রেসেই সেগুলো লিখবে। কিন্তু যখন উপরের অক্ষর গুলো লিখবেন তখন অবশ্যই আপনাকে Shift বাটন চেপে ধরে নিচের অক্ষর গুলো লিখতে হবে। এছাড়াও যখন কোন যুক্ত অক্ষর লিখার প্রয়োজন হবে তখন একটি অক্ষরের সাথে অন্য অক্ষর লিঙ্ক করতে অর্থাৎ যুক্ত করতে ‘G’ বাটন প্রেস করতে হবে। তাই ‘G’ বাটনটি হল লিঙ্ক বাটন যার মাধ্যমে যুক্ত অক্ষর গুলো লিখা যায়।

বিজয় কিবোর্ড দিয়ে কম্পিউটারে স্বরবর্ণ লেখার নিয়ম

বিজয় কী-বোর্ড -এ ‘অ’ এবং ‘ও’ ছাড়া অন্য কোন স্বরবর্ণ নেই। আপনি যদি সেসব স্বরবর্ণ ব্যবহার করতে চান তবে প্রথমে এ (কী-বোর্ডে সংযুক্তি বা হসন্ত মুদ্রিত থাকবে) টাইপ করবেন এবং এরপর সংশ্লিষ্ট স্বরচিহ্ন টাইপ করবেন।
অ = Shift+F
আ = G+F ই = G+D
ঈ = G+(Shift+D)
উ = G+S
ঊ = G+(Shift+S)
ঋ = G+A
এ = G+C
ঐ = G+(Shift+C)
ও = X
ঔ = G+(Shift+X)

বিজয় কিবোর্ড দিয়ে কম্পিউটারে ব্যঞ্জনবর্ণ লেখার নিয়ম

ক = J
খ = Shift+J
গ = O
ঘ = Shift+O
ঙ = Q
চ = Y
ছ = Shift+Y
জ = U
ঝ = Shift+U
ঞ = Shift+I
ট = T
ঠ = Shift+T
ড = E
ঢ = Shift+E
ণ = Shift+B
ত = K
থ = Shift+K
দ = L
ধ = Shift+L
ন = B
প = R
ফ = Shift+R
ব = H
ভ = Shift+H
ম = M
য = W
র = V
ল = Shift+V
শ = Shift+M
ষ = Shift+N
স = N
হ = I
ঢ় = P
য় = Shift+W
ৎ = Shift+/
s = Shift+Q
t = /
u = Shift+7

উপরিক্ত স্বরবর্ণ ও ব্যঞ্জনবর্ণ ছাড়াও আরো কিছু বিরাম চিহ্ন (আ- কার, এ-কার, ও-কার ইত্যাদি) আছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক উক্ত বিরাম চিহ্ন ও এগুলোর শর্টকাট সম্পর্কে।

বিজয় কিবোর্ড দিয়ে কম্পিউটারে যুক্তাক্ষর লেখার নিয়ম
আমরা সবাই যুক্তাক্ষর সম্পর্কে জানি। যুক্তাক্ষর মূলত উচ্চারনের উপর নির্ভর করে। যে যত ভাল উচ্চারন করতে পারবে সে তত ভাল যুক্তাক্ষর লিখতে পারবে। যুক্তাক্ষর মানে একের অধিক অক্ষর দিয়ে কোনো একটি অর্থপূর্ণ শব্দ তৈরি করা।
বাংলায় যুক্তাক্ষর তৈরির জন্য ইংরেজী (G) বোতামকে সংযুক্তি বোতাম হিসেবে ব্যবহার করা হয়। যেমন- ‘শক্ত’ শব্দের ‘ক্ত’ বর্ণটি হচ্ছে ‘ক’ এবং ‘ত’ বর্ণের যুক্তরূপ। এজন্য ‘ক’ টাইপ করে ্ (হসন্ত) বা G বোতামে চাপ দিয়ে ‘ত’ টাইপ করলে ‘ক্ত’ যুক্তাক্ষর তৈরি হয়ে যায়।

নিন্মে কিছু গুরুত্বপূর্ন যুক্ত বর্ণের তালিকা দেয়া হল:
বাংলা যুক্তাক্ষর টাইপ করতে অনেক ক্ষেত্রেই সমস্যা দেখা দেয়। কোন কোন বর্ণের সমন্বয়ে ঐ যুক্তাক্ষর তৈরি হয় তা জানা নাও থাকতে পারে। যেমনঃ ডিস্ক, ঋষি, বাক্স, সূক্ষ্ম, রাষ্ট্র, গ্রীষ্ম, মন্ত্র, স্বপ্ন, সম্ভ্রম, কম্প্লেইন, উল্কা, ভ্রু, ভ্রূ, ম্লান, লম্ফ, কম্বল, শুষ্ক, স্ক্রু, হৃদয়, অপরাহ্ণ, চিহ্ন, শুশ্রূষা, ভস্ম, অঞ্জন, বিজ্ঞান, বাঞ্ছনীয়, কৃষ্ণ, ব্রহ্মান্ড, আকাঙ্খা, মুগ্ধ, উৎকণ্ঠা, তেজস্ক্রিয়, চঞ্চল, শুদ্ধ, চট্টগ্রাম ইত্যাদি শব্দে ব্যবহৃত যুক্তাক্ষরগুলো।

  1. ক্ত (ক+ত) = J+G+k ; যেমনঃ তক্তা
  2. ক্ষ (ক+ষ) = J+G+(Shift+N) ; যেমনঃ ক্ষমা
  3. হ্ম (হ+ম) = I+G+M ; যেমনঃ ব্রহ্মা
  4. ক্ষ্ম (ক+ষ+ম) = J+G+(Shift+N)+G+M ; যেমনঃ লক্ষ্মী
  5. জ্ঞ (জ+ঞ) = U+G+(Shift+I) ; যেমনঃ অজ্ঞ
  6. ঞ্জ (ঞ + জ) = (Shift+I)+G+U ; যেমনঃ গুঞ্জন
  7. ঞ্চ (ঞ + চ) = (Shift+I)+G+Y ; যেমনঃ চঞ্চল
  8. ব্ব (ব+ব) = H+G+H ; যেমনঃ আব্বা
  9. ত্ত (ত+ত) = K+G+K ; যেমনঃ মত্ত
  10. ত্র (ত+র) = k+Z ; যেমনঃ ত্রাণ
  11. হৃ (হ+ ঋ) = I+ ; যেমনঃ হৃদয়
  12. ঘু (ঘ+ু) = (Shift+O)+S ; যেমনঃ ঘুঘু
  13. হু (হ+ু) = I+S ; যেমনঃ হুংকার
  14. শু (শ+ু) = (Shift+M)+S ; যেমনঃ শুটকি
  15. ক্র (ক+র) = J+Z ; যেমনঃ ক্রন্দন
  16. ন্ত্র (ন+ত+র) = B+G+K+Z ; যেমনঃ মন্ত্র
  17. দ্ধ (দ+ধ) = L+G+(Shift+L) ; যেমনঃ উদ্ধার
  18. দ্ভ (দ+ভ) = L+G+(Shift+H) ; যেমনঃ উদ্ভাবক
  19. ক্স (ক+স) = J+G+N ; যেমনঃ কক্সবাজার
  20. ক্ম (ক+ম) = J+G+M ; যেমনঃ রুক্মিণী
  21. ক্ল (ক+ল) = J+G+(Shift+V) ; যেমনঃ ক্লাস
  22. ঙ্গ (ঙ+গ) = Q+G+O ; যেমনঃ অঙ্গন
  23. চ্ছ (চ+ছ) = Y+G+(Shift+Y) ; যেমনঃ যথেচ্ছা
  24. ক্ক (ক+ক) = J+G+J ; যেমনঃ চক্কর
  25. গ্ধ (গ+ধ) = O+G+(Shift+L) ; যেমনঃ মুগ্ধ
  26. গ্ম (গ+ম) = O+G+M ; যেমনঃ বাগ্মী
  27. গ্র (গ+ র-ফলা) = O+Z ; যেমনঃ গ্রাস
  28. গ্ল (গ+ল) = O+G+(Shift+V) ; যেমনঃ গ্লাস
  29. গ্রু (গ+র+ু) = O+Z+S ; যেমনঃ গ্রুপ
  30. ঙ্ক (ঙ+ক) = Q+G+J ; যেমনঃ অঙ্কন
  31. ঙ্খ (ঙ+খ) = Q+G+(Shift+J) ; যেমনঃ শঙ্খ
  32. জ্জ (জ+জ) = U+G+U ; যেমনঃ লজ্জা
  33. দ্ম (দ+ম) = L+G+M ; যেমনঃ পদ্মা
  34. জ্জ্ব (জ+জ+ব) = U+G+(Shift+I) ; যেমনঃ উজ্জ্বল
  35. ট্ট (ট+ট) = T+T ; যেমনঃ চট্টগ্রাম
  36. ন্ঠ (ন+ঠ) = (Shift+B)+G+(Shift+T) ; যেমনঃ লণ্ঠন
  37. ত্থ (ত+থ) = K+G+(Shift+K) ; যেমনঃ অশ্বত্থ
  38. ত্ম (ত+ম) = K+G+M ; যেমনঃ আত্ম
  39. ত্ত্ব (ত+ত+ব) = K+G+K+G+H ; যেমনঃ তত্ত্বাবধায়ক
  40. ত্রু (ত+র-ফলা+ু) = K+Z+S ; যেমনঃ ত্রুটি
  41. দ্রু (দ+র+ু) = L+Z+S ; যেমনঃ দ্রুত
  42. ধ্রু (ধ+র-ফলা+ু) = (Shift+L)+Z+S
  43. ন্থ (ন+হ) = B+G+(Shift+K) ; যেমনঃ গ্রন্থ
  44. ন্ব (ন+ব) = B+G+H ; যেমনঃ অন্বেষণ
  45. ন্ম (ন+ম) = B+G+M ; যেমনঃ জন্ম
  46. ন্ট্রা (ন+ট+র+া) = B+G+T+Z+F ; যেমনঃ কন্ট্রাক্টর
  47. ন্ড্রু (ন+ড+র+ু) = B+G+K+Z ; যেমনঃ এন্ড্রু
  48. ন্দ্র (ন+দ+র-ফলা) = B+G+L+Z ; যেমনঃ চন্দ্রিমা
  49. ন্ধ (ন+ধ) = B+(Shift+L) ; যেমনঃ অন্ধ
  50. ব্ধ (ব+ধ) = H+G+(Shift+L) ; যেমনঃ উপলব্ধি
  51. ভ্র (ভ+র) = (Shift+H)+Z ; যেমনঃ ভ্রমণ
  52. ভ্রু (ভ+র+ু) = (Shift+H)+Z+(Shift+S) ; যেমনঃ ভ্রুকটি
  53. ম্ন (ম+ন) = M+G+B ; যেমনঃ নিম্ন
  54. ল্কা (ল+ক+া) = V+G+J+F ; যেমনঃ হাল্কা
  55. শ্ম (শ+ম) = (Shift+M)+G+M ; যেমনঃ শ্মশান
  56. ষ্ক (ষ+ক) = (Shift+N)+G+J ; যেমনঃ পরিষ্কার
  57. ষ্ঠ (ষ+ঠ) = (Shift+N)+G+(Shift+T) ; যেমনঃ সুষ্ঠু
  58. ষ্প (ষ+প) = (Shift+N)+G+R ; যেমনঃ নিষ্পাপ
  59. ষ্ফ (ষ+ফ) = (Shift+N)+G+(Shift+R) ; যেমনঃ নিষ্ফল
  60. ষ্ট্র (ষ+ট+র-ফলা) = (Shift+N)+G+T+Z ; যেমনঃ রাষ্ট্র
  61. ষ্ণ (ষ+ণ) = (Shift+N)+G+(Shift+B) ; যেমনঃ উষ্ণ
  62. ষ্ম (ষ+ম) = (Shift+N)+G+M ; যেমনঃ গ্রীষ্ম
  63. স্থ (স+হ) = N+G+(Shift+K) ; যেমনঃ অবস্থান
  64. স্ত্র (স+ত+র) = N+G+K+Z ; যেমনঃ অস্ত্র
  65. স্ক্রু (স+ক+র+ু) = N+G+J+Z+S ; যেমনঃ স্ক্রু
  66. স্ক্র (স+ক+র) = N+G+J+Z ; যেমনঃ স্ক্রিন
  67. স্প্ল (স+প+ল) = N+G+R+G+(Shift+V) ; যেমনঃ স্প্লিন্টার
  68. হ্ন (হ+ন) = I+G+B ; যেমনঃ বহ্নি
  69. স্ফ (স+ফ) = N+G+(Shift+R) ; যেমনঃ স্ফীত
  70. চ্ছ্ব (চ+ছ+ব) = Y+G+(Shift+Y)+G+H ; যেমনঃ উচ্ছ্বাস
  71. হ্ব (হ+ব) = I+G+H ; যেমনঃ বিহ্বল


আশা করি আমার এই লেখাটি পড়ে বিজয় কীবোর্ড দিয়ে কম্পিউটারে বাংলা স্বরবর্ণ, ব্যঞ্জনবর্ণ, বিরাম চিহ্ন ও যুক্তাক্ষর লেখা নিয়ে আর কোন সমস্যা হবেনা। লেখাটি পড়ার জন্য সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ এবং ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Recommended For You

About the Author: Techohelp

"Techohelp" একটি টিউটরিয়াল ভিত্তিক বাংলায় ব্লগ। যারা কম্পিউটার, ইন্টারনেট, ওয়েবসাইট এবং অনলাইন প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে চান তাদের জন্য Techohelp একটি দারুন প্লাটফরম। অনলাইনে ইনকাম বা ফ্রিলাঞ্চিং বিষয়ে জানতে ও শিখতে আগ্রহিদের কথা মাথায় রেখে, ওয়েবসাইটের সকল কন্টেন্ট এমন ভাবে লেখা হয় যেন আপনি নিজেই ঘরে বসে নিজের মতন সহজে শিখতে পারেন। ফেসবুকে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুনঃ https://www.facebook.com/Techohelp/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *