ভার্চুয়াল ভিজিটিং কার্ড আনলো গুগল | পিপল কার্ড তৈরির নিয়মাবলী

ভার্চুয়াল ভিজিটিং কার্ড আনল গুগল

গুগলের ভার্চুয়াল ভিজিটিং কার্ড (Virtual Visiting Cards) এর নাম দেওয়া হয়েছে পিপল কার্ড (Google People Card)। কোনো অপরিচিত ব্যক্তির সঙ্গে পরিচিতির ভালো একটি মাধ্যম হলো ভিজিটিং কার্ড। বিশেষ করে ব্যবসা বা চাকরি করতে গেলে ভিজিটিং কার্ডের প্রয়োজন পড়ে। যার মাধ্যমে কোনো অপরিচিত ব্যক্তিদের সঙ্গে নিজেকে সংক্ষিপ্তভাবে পরিচয় ঘটাতে সাহায্য করে। এ ধারণা থেকেই এবার ভার্চুয়াল ভিজিটিং কার্ড নিয়ে এসেছে গুগল। পিপল কার্ড এর মাধ্যমে অনলাইনে সহজেই খুঁজে পাওয়া যাবে যে কোনও ব্যক্তিকে। গুগল সার্চে আপনার নাম লিখলেই জানা যাবে ন্যূনতম তথ্য। তবে এই পিপল কার্ড বাধ্যতামূলক নয়।

পিপল কার্ডে কী কী তথ্য থাকবে?

কোনও সংশ্লিষ্ট ইউজার যদি নিজের সম্পর্কে গুগলে তথ্য দিতে চান, তবে কাজে আসতে পারে এই পিপল কার্ড। এর মাধ্যমে নিজের ফোন নম্বর, ওয়েবসাইট, ইমেল আইডি এবং আরও অনেক তথ্য আপনি গুগলে সবার সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন।
কেউ যদি আপনার নাম লিখে গুগলে সার্চ করে, তবে এই তথ্যগুলো সার্চ রেজাল্টে দেখা যাবে। কী কী তথ্য দেবেন, তার নিয়ন্ত্রণ আপনার হাতেই থাকছে। আপনি চাইলে পরবর্তীতে এই ভার্চুয়াল ভিজিটিং কার্ড এর তথ্য গোপনও করতে পারবেন।
গুগলের পক্ষ থেকে জানানো হয়, আপাতত শুধু স্মার্টফোন ইউজাররাই এই ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন। এর মানে ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটার থেকে পিপল কার্ড ব্যবহার করা যাবে না।

যেভাবে পিপল কার্ড তৈরি করবেন:

নিজের গুগল অ্যাকাউন্টের সাহায্যে এই পিপল কার্ড তৈরি করা খুবই সহজ। প্রথমেই সাইন ইন করে নিন।
এরপর গুগল সার্চে গিয়ে নিজের নাম সার্চ করতে পারেন বা টাইপ করতে পারেন ‘Add me to Search’।
প্রথম যে রেজাল্ট আসবে, তা ফলো করেই নিজেকে গুগল সার্চে আনতে পিপল কার্ড বানাতে পারবেন আপনি।
কার্ড তৈরির পর ছবি (অপশনাল) বেছে নিন, ডেসক্রিপশন লিখুন, ওয়েবসাইটের লিংক এবং সোশ্যাল মিডিয়ার তথ্য দিতে পারেন। এছাড়াও ফোন নম্বর ও ইমেল আইডি দেওয়া যাবে।

পিপল কার্ডের সাইবার নিরাপত্তা

ভার্চুয়াল এই কার্ডের তথ্য সুরক্ষার জন্য বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে গুগল। একজন ইউজার একটিই পিপল কার্ড ব্যবহার করতে পারবে। বৈধতা যাচাইয়ের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউজারের গুগল অ্যাকাউন্ট এবং ফোন নম্বর যাচাই করবে গুগল। এছাড়াও ইচ্ছামতো গুগল পিপল কার্ড থেকে তথ্য ডিলিট বা অ্যাড করতে পারবেন ইউজার। রয়েছে একটি ফিডব্যাক অপশনও। যার মাধ্যমে কার্ড সম্পর্কিত জরুরি যোগাযোগ করতে পারবেন ইউজার।

একই নামের দুই জন ইউজার!

কোটি কোটি ইউজারের মধ্যে এক নামে একাধিক ব্যক্তি থাকাটা একেবারেই স্বাভাবিক। এক্ষেত্রে পিপল কার্ড তৈরির সময় কী করবেন? এক্ষেত্রে আপনার করণীয় কিছু নেই। তবে ছবি দেওয়া জরুরি। কারণ, নাম ছাড়াও ছবি ও অন্যান্য তথ্যের মাধ্যমে সঠিক ইউজারকে চিহ্নিত করা সম্ভব হবে।

Recommended For You

About the Author: Techohelp

"Techohelp" একটি টিউটরিয়াল ভিত্তিক বাংলায় ব্লগ। যারা কম্পিউটার, ইন্টারনেট, ওয়েবসাইট এবং অনলাইন প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে চান তাদের জন্য Techohelp একটি দারুন প্লাটফরম। অনলাইনে ইনকাম বা ফ্রিলাঞ্চিং বিষয়ে জানতে ও শিখতে আগ্রহিদের কথা মাথায় রেখে, ওয়েবসাইটের সকল কন্টেন্ট এমন ভাবে লেখা হয় যেন আপনি নিজেই ঘরে বসে নিজের মতন সহজে শিখতে পারেন। ফেসবুকে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুনঃ https://www.facebook.com/Techohelp/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *